Home Organization News Council ভাষা ছাড়া একটি সংস্কৃতি বেঁচে থাকতে পারে না-প্রফেসর মংসানু চৌধুরী।

ভাষা ছাড়া একটি সংস্কৃতি বেঁচে থাকতে পারে না-প্রফেসর মংসানু চৌধুরী।

0
ভাষা ছাড়া একটি সংস্কৃতি বেঁচে থাকতে পারে না-প্রফেসর মংসানু চৌধুরী।

১৫ই অক্টোবর রোজ শুক্রবার রাঙ্গামাটি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউটের অডিটোরিয়ামে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে বাংলাদেশ মারমা স্টুডেন্টস্ কাউন্সিল (বিএমএসসি) কেন্দ্রীয় কমিটি কর্তৃক “নিজস্ব ভাষা, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও ইতিহাসকে সমুন্নত রাখতে শিক্ষা, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও অধিকারমূলক আন্দোলনকে জোরদার করুন”- এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ১৮তম কেন্দ্রীয় ছাত্র সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সাধারণ সম্পাদক কো উকিং ওয়ং মারমা‘র সঞ্চালনায় এ সম্মেলনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, লেখক ও গবেষক প্রফেসর উ মংসানু চৌধুরী। আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মারমা ভাষা শিক্ষা কোর্সের প্রশিক্ষক উ ক্য শৈ প্রু (খোকা)। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মারমা উন্নয়ন সংসদ, কেন্দ্রীয় কমিটির সম্মানিত সভাপতি উ মংপ্রু চৌধুরী, বান্দরবান পার্বত্য জেলার হেডম্যান কার্বারী কল্যাণ পরিষদের সম্মানিত সভাপতি উ হ্লাথোয়াই হ্রী প্রমুখ।

ফিতা কেটে উদ্বোধন প্রধান অতিথির

উক্ত সম্মেলন ও আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ১৭তম কেন্দ্রীয় কমিটির সম্মানিত সভাপতি কো নিঅং মারমা। এ সম্মেলনের প্রধান অতিথি উ মংসানু চৌধুরী কর্তৃক লাল ফিতা কেটে সম্মেলন উদ্বোধন করা হয়। পরে জাতীয় সংগীত ও দলীয় সংগীত গাওয়ার মাধ্যমে যথাক্রমে প্রধান অতিথি কর্তৃক জাতীয় পতাকা ও সভাপতি কো নিঅং মারমা কর্তৃক দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

পতাকা উত্তোলন ১৭ তম কেন্দ্রীয় কমিটি সভাপতি কো নিঅং মারমা ।

ত্রিপিটক পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হলে আলোচনা সভার শুরুতে সম্মানিত অতিথিবৃন্দ ও বিএমএসসি দলীয় সংগীতের গীতিকার বিএমএসসি’র ৪র্থ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি উ উচিংমং চৌধুরী, সুরকার খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার বীর মুক্তিযোদ্ধা উ মংসাথোয়াইং চৌধুরী এবং মারমা ভাষায় অনুবাদক ও সুরকার, বিএমএসসি প্রতিষ্ঠাকালীন সাংস্কৃতিক সম্পাদক উ চথুইফ্রু মারমা’কে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।

বক্তব্যের শুরুতে প্রধান অতিথি বলেন, ভাষা ছাড়া একটি সংস্কৃতি বেঁচে থাকতে পারে না। ঠিক তেমনি সংস্কৃতি ছাড়াও একটি জাতির অস্তিত্ব টিকে থাকতে পারে না। তাই একটি জাতিকে টিকে থাকতে হলে অবশ্যই নিজ মাতৃভাষাকে টিকিয়ে রাখতে হবে। নামকরণ থেকে শুরু করে আমাদের চিন্তা-চেতনায় আমরা নিজস্বতা হারিয়ে যেতে বসেছি, যা খুবই দুঃখজনক। তাই সবাইকে একযোগে নিজেদের ভাষা, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য লালন ও পালন খুবই জরুরী।

এ ছাত্র সম্মেলনের মাধ্যমে বিএমএসসি গঠনতন্ত্র ৫ম বারের মতো সংশোধন, পরিবর্ধন, সংযোজন ও বিয়োজন হয়। কমিটির সদস্য বৃদ্ধি, যুগের সাথে তাল মিলিয়ে নতুন পদ তৈরী, ‘মহিলা’ শব্দের পরিবর্তে ‘নারী’ শব্দ প্রতিস্থাপন, বিএমএসসি’র স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি রক্ষণাবেক্ষণের জন্য দপ্তর সম্পাদককে বিশেষ দায়িত্ব প্রদান, শপথবাক্যকে মারমা ভাষায় অনুবাদ করে সংযোজনসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সংশোধন, পরিবর্ধন, সংযোজন ও বিয়োজন করা হয়।

শিক্ষার্থী, সাবেক নেতৃবৃন্দ, শুভাকাঙ্ক্ষীসহ প্রায় ৩০০ জনের অংশগ্রহণে এ কেন্দ্রীয় ছাত্র সম্মেলন সফলভাবে সম্পন্ন হয়। এ সম্মেলনের আলোচনা সভা শেষে কাউন্সিল অধিবেশনে ১৮ তম কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন কো উকিংওয়ং মারমা, সাধারণ সম্পাদক কো রাম্রাচাই মারমা, সাংগঠনিক সম্পাদক কো উথোয়াইসিং মারমা, অর্থ সম্পাদক কো ক্যচিংহ্লা মারমা এবং নারী বিষয়ক সম্পাদক মে ম্রাসুইচিং মারমাসহ ৩১জন সদস্যবিশিষ্ট নতুন সংগঠকরা।নবগঠিত কমিটিদের শপথবাক্য পাঠ করান সংগঠনের সভাপতি কো নিঅং মারমা।

১৮ তম কেন্দ্রীয় কমিটির শপথ গ্রহণ।

আলোচনা সভা ও কাউন্সিল অধিবেশন শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ১৮ তম কেন্দ্রীয় ছাত্র সম্মেলন ২০২১ সমাপ্তি হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here